ইতিবাচক মানসিকতা অর্জনের কৌশলগুলো

আপনি কি কখনো ভেবে দেখেছেন কেন কিছু মানুষ যাই ঘটুকনা কেন সবসময় মূলত ভালো থাকেন? জীবন তাদের ওপর যত বাধা-বিপত্তিই ঠেলে দিক না কেন তারা সবসময়ই শীর্ষস্থান দখল করে রাখেন। তারা এই নীতিবাক্য অনুসরণ করে বাঁচেন, “জীবন যদি তোমাকে লেবু দেয়, তাহলে তুমি তা দিয়ে অর্গানিক লেবুর সরবত বানাও।”
অথচ, এমন প্রচুর সংখ্যক লোক আছেন যাদের অনেক বড় বড় সুবিধা থাকা সত্ত্বেও তারা কোনো পরিকল্পনা প্রণয়ন এবং তা বাস্তবায়নে সক্ষম হন না। এবং ব্যর্থ হন।
কিন্তু সফল লোকরা শুধু ভাগ্যের জোরেই সফল হন না।

এমন কিছু অর্জনযোগ্য দক্ষতা আছে যেগুলো আয়ত্ব করতে পারলে আপনিও সফল হবেন। এর একটি হলো, ইতিবাচক মানসিকতা। কর্মদক্ষতা এবং প্রতিভা শুধু আপনাকে বিশেষ একটি পর্যায় পর্যন্ত এগিয়ে নেবে। কিন্তু বাকীটা আপনার মানসিকতার ওপর নির্ভর করবে। ইতিবাচক মানসিকতাই কাউকে সবচেয়ে বেশি জোরালোভাবে সফলতার পথে এগিয়ে নিয়ে যায়। এখানে রইল এমন চারটি কৌশলের বিবরণ যেগুলো ব্যবহার করে আপনি আজই আপনার মানসিকতার পরিবর্তন করতে পারবেন। আর এর চুড়ান্ত পরিণতিতে আপনার জীবনটাই বদলে যাবে।

পদক্ষেপ ১: সঠিক লক্ষ্য নির্ধারণের মাধ্যমে ব্যর্থতা কমিয়ে আনুন ব্যর্থতার কারণে নেতিবাচক আত্মসমালোচনা বেশি হারে সৃষ্টি হয়। আর ব্যর্থতার পেছনে দায়ী আরেকটি বড় কালপ্রিট হলো ভুল লক্ষ্য নির্ধারণ। এর ফলে আমরা অনেক সময় নিজেদেরকে সফল হওয়ারই সুযোগ দেই না। লক্ষ্য নির্ধারণে ভুল করার মানে হলো ঠিকভাবে লক্ষ্য নির্ধারণে ব্যর্থতা। আমরা সাধারণত প্রায় সবসময়ই অস্পষ্টভাবে এবং বিশাল পরিসরে ও সুদুরপ্রসারি লক্ষ্য নির্ধারণ করি। তার চেয়ে বরং এই মুহূর্তে কী করার সম্ভব সে অনুযায়ী সুনির্দিষ্টভাবে লক্ষ্য নির্ধারণ করতে হবে।

উদাহরণত, কেউ যদি লক্ষ্য নির্ধারণ করেন, আমি ইংরেজি শিখতে চাই এবং এর মাধ্যমে আমি বেতন বাড়াতে বা আরেকটি ভালো চাকরি পেতে চাই। দুটো লক্ষ্যই অনেক বড়। এবং সেগুলো পুরণে দীর্ঘ সময়ের দরকার। এর চেয়ে বরং আমি আজ থেকে প্রতিদিন এক ঘন্টা করে ইংরেজি শিখব। এভাবে আগামী ডিসেম্বরের মধ্যেই আমি ইংরেজিতে কথা বলা শিখব। এভাবে ভেঙ্গে ভেঙ্গে লক্ষ্য নির্ধারণ করতে হবে।

About Admin

Check Also

বেবি কেয়ার পণ্যে ৫ ধরনের রাসায়নিক বর্জন করুন

বাজারে প্রচলিত শিশুর জন্য শ্যাম্পু, সাবান ও লোশনের মতো পণ্যগুলোতে যেসব উপাদান ব্যবহৃত হয় তার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *