৬ উপায়ে অফিসকে করে তুলুন উপভোগ্য

ক্লান্তি এলে ফেসবুকের নিউজ ফিডে ঘোরাঘুরি করবেন না। গবেষণায় বলা হয়, এ সময় কৌতুককর কোনো বিষয় দারুণ কাজে দিতে পারে। অবসাদের সময় প্রাণশক্তি ফিরে পেতে মজার কোনো ভিডিও দেখে নিতে পারেন। এরপর দেখবেন, কঠিন কাজও সহজ মনে হচ্ছে। বিজ্ঞান বলছে, অন্ধকার ঘরে একাকী বসে থাকলে পেরেশানি দূর হয়। তবে অফিসে এমন জায়গা নাও মিলতে পারে। সে ক্ষেত্রে বাইরে গিয়ে একটু হেঁটে আসতে পারেন। তাতে হারানো শক্তি ফিরে পাবেন। আরেকটি কাজও করতে পারেন। অফিসের চেয়ারে বসে চোখ বন্ধ করে কিছুক্ষণ বসে থাকতে পারেন।

এ জন্য আপনাকে এখনই ব্যায়ামের ক্লাসে ভর্তি হতে হবে না। সম্প্রতি নিউ ইয়র্ক টাইমসে প্রকাশিত এক গবেষণা প্রতিবেদনে বলা হয়, অফিসে কাজের সময় প্রতি এক ঘণ্টা পর পর মিনিট পাঁচেক হাঁটলে অবসাদ দূর হয়। গবেষণায় বলা হয়, টানা ৩০ মিনিট হাঁটার চেয়ে ঘণ্টাখানেক পর পর সামান্য সময় হাঁটার কাজে অনেক বেশি উপকার মেলে। অনেক সময় এমন হয় যে কাজে আর বিন্দুমাত্র মাথা খাটাতে পারছেন না। আসলে একই ধরনের কাজ করতে করতে এমনটা হতে পারে। এক গবেষণায় বলা হয়, পরিশ্রান্ত মস্তিষ্ক সৃষ্টিশীল কাজের দুয়ার খুলে দেয়। এ সময় নতুন নতুন আইডিয়া সৃষ্টিতে প্রস্তুত থাকে মগজ। আর এমন চিন্তায় ডুব দিলে সব ক্লান্তি দূর হয়। তাই সৃষ্টিশীল কোনো চিন্তায় মস্তিষ্কে ঝড় তুলুন। প্রাণশক্তি ফিরে আসবে।

ছোট ছোট জয় আপনাকে আরো বড় জয়ের দিকে নিয়ে যেতে পারে। হার্ভার্ড বিজনেস রিভিউয়ে প্রকাশিত এক গবেষণাপত্রে তেরেসা অ্যামাবিল ও স্টিভেন জে. ক্রামার জানান, ক্ষুদ্র সফলতাগুলো অর্থপূর্ণভাবে চিন্তা করতে থাকলে অনুপ্রেরণা মেলে। বাড়ে উত্পাদনশীলতা। দূর হয় ক্লান্তিও। অবসাদ ভর করার আগেই কাজে বিরতি নিন। এক কাপ কফি খেতে পারেন। গবেষণায় বলা হয়, কর্মদিবস শুরুর প্রথম দিকেই বিরতি নিয়ে অনেক বেশি শক্তি সঞ্চিত হয়। এতে উদ্দীপনা, মনোযোগ ও প্রেরণা বৃদ্ধি পায়।

About Admin

Check Also

মিটিংয়ে স্মার্টফোনের বিড়ম্বনা থেকে বাঁচার উপায়

স্মার্টফোন এখন আমাদের অনেকেরই নিত্যদিনের সঙ্গী হয়ে উঠেছে। আর স্মার্টফোন ব্যবহার করতে গিয়ে আমরা একে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *