Breaking News
Home / Health / করোনাকালে মুঠো ভরে ভিটামিন ক্যাপসুল না খেয়ে খান কাঁঠালের বীজ, হু হু করে বাড়বে ইমিউনিটি

করোনাকালে মুঠো ভরে ভিটামিন ক্যাপসুল না খেয়ে খান কাঁঠালের বীজ, হু হু করে বাড়বে ইমিউনিটি

করোনা ভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউয়ের সাথে আজ লড়াই করছে গোটা দেশ। অক্সিজেন থেকে শুরু করে হাসপাতালের বেড পাবার জন্য হননি হয়ে ঘুরতে হচ্ছে মানুষকে।

তবে স্বস্থির খবর বিগত কিছুদিন কিছুটা কমেছে করোনা সংক্রমণের হার। তবে এখনো কাটেনি বিপদ, মাস্ক পড়া থেকে শুরু করে সামাজিক দূরত্ববিধি কোনোটাই অগ্রাহ্য করলে চলবে না। আর করোনা থেকে বাঁচার জন্য ভ্যাকসিন ইতিমধ্যেই এসে গিয়েছে ধীরে ধীরে সকলের জন্যই মিলবে ভ্যাকসিন।

তবে ভ্যাকসিন ছাড়াও মৃদু করোনা সংক্রমণের ক্ষেত্রে শরীরের ইমিউনিটি পাওয়ার অর্থাৎ রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা ভালো থাকলে সুস্থ হয়ে যাচ্ছেন অনেকেই। রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে ডাক্তারের ভিটামিন সি সহ নানান মাল্টিভিটামিনের পরামর্শ দিচ্ছেন।

অনেকেই এই সমস্ত মাল্টিভিটামিন কিনতে দোকানে ভিড় করছেন ও মুঠো মুঠো ভিটামিন খেয়ে চলেছেন রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে। কিন্তু জানেন কি ওষুধ না খেয়েও শরীরের রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানো হয় প্রাকৃতিক জিনিস খাবার মধ্যে দিয়েই!

হ্যাঁ ঠিকই দেখেছেন, ভিটামিন ট্যাবলেট না খেয়ে বাঙালির প্রিয় খাবার কাঁঠালের সাহায্যেই বাড়ানো যেতে পারে ইমিউনিটি পাওয়ার। বৈজ্ঞানিক মতে, কাঁঠালের বীজে (jackfruit seeds) প্রোটিন, ভিটামিন ও পটাশিয়াম রয়েছে যেটা শরীরের জন্য খুবই উপকারী।

তাছাড়া রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতেও সাহায্য করে। তাই চাইলে কাঁঠালের বীজ খেয়েও কোরোনার বিরুদ্ধে ইমিউনিটি বাড়াতেই পারেন। এখানেই শেষ নয়, আরো অনেক উপকারিতা রয়েছে কাঁঠালের বীজের। দেখে নিন সেগুলি :

কাঁঠালের বীজ শরীরের আয়রনের মাত্রা বাড়াতে সাহায্য করে। যা হিমোগ্লোবিনের উপাদান, ফলে অ্যানিমিয়া রোধে সাহায্য করে।

কাঁঠালের বীজে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন এ থাকে যা চোখের জন্য খুবই উপকারী। এমনকি রাতকানা হওয়া থেকে বাঁচাতে পারে।

কাঁঠালের বীজ রোদে শুকিয়ে সেটাকে গুঁড়ো করে যদি খাওয়া যায় তাহলে কোষ্ঠকাঠিন্যের মত সমস্যার থেকে মুক্তি পাওয়া যেতে পারে। হজমশক্তি বর্ধক হিসাবেও ব্যবহার করা যেতে পারে।

কাঁঠালের বীজে উপস্থিত ফ্ল্যাভানয়েড শরীরে উপস্থিত খারাপ কোলেস্টেরল কমাতে সাহায্য করে।

Check Also

লজ্জাবতী গাছের ঔষধি গুণাবলী জেনে অবাক হবেন!

লজ্জাবতী। আবার কেউ কেউ এক বলেন লাজুক লতা। পরিচয় বর্ষজীবি গুল্ম আগাছা বা ঔষধি গাছ। …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *