Home / Uncategorized / ইমিউনিটি বাড়াতে খান গিলয়-এর জুস, জেনে নিন এর বিভিন্ন উপকারিতা

ইমিউনিটি বাড়াতে খান গিলয়-এর জুস, জেনে নিন এর বিভিন্ন উপকারিতা

করোনার দাপটে প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ মারা যাচ্ছে। এর থেকে বাঁচতে চলছে টিকাকরণ, কিন্তু অনেকেই ভ্যাকসিন নেওয়ার পরেও করোনা আক্রান্ত হচ্ছেন। তাই এই মারণ ভাইরাস থেকে বাঁচতে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা শক্তিশালী করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এর জন্য আপনি গিলয়-কে কাজে লাগাতে পারেন।

গিলয় একটি আয়ুর্বেদিক ঔষধি, যা দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা মজবুত করতে সহায়তা করে। গিলয়ের পাতায় ক্যালসিয়াম, প্রোটিন পাওয়া যায়। এটি বিভিন্ন রোগ থেকে আমাদের রক্ষা করতে পারে। তাহলে আসুন জেনে নেওয়া যাক এর উপকারিতা।

গিলয়কে ইমিউনিটি বুস্টার বলা হয়। এটি শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে দারুণ সাহায্য করে, ফলে করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াই করার শক্তি মেলে। এর বৈশিষ্ট্যগুলি ঠান্ডা লাগা, কাশি-সর্দি থেকে রক্ষা করে। আপনি তুলসি পাতার সাথে গিলয়ের ডাঁটা জলে গরম করে খেতে পারেন। এটি সর্দি-কাশি থেকে মুক্তি দেয়।

গিলয় রক্তাল্পতা দূর করতে সহায়ক। গিলয়ের রস দেহে টিনোস্পোরিক অ্যাসিডের ঘাটতি পূরণ করে। তাই অ্যানিমিয়ার রোগীদের গিলয় খাওয়া উচিত। গিলয়ের ডাঁটা জলে দিয়ে জল গরম করুন। এরপরে এটি ফিল্টার করে পান করুন। গিলয়ের স্বাদ তেতো হয়, তবে এটি ভাইরাস থেকে রক্ষা করতে খুব সহায়ক।

গিলয় চোখের জন্যও খুব উপকারি। এটি চোখের দৃষ্টিশক্তি বাড়াতে সহায়ক। গিলয়ের রস পান করলে দৃষ্টিশক্তি আরও ভাল হয়। গিলয় ব্যবহারে হাঁপানি ও কাশি থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। গিলয়ে অ্যান্টি-ইনফ্ল্যামেটরি বৈশিষ্ট্য রয়েছে, যা শ্বাসজনিত সমস্যা থেকে স্বস্তি দেয়।

গিলয় ফুসফুস পরিষ্কার রাখতে সহায়ক। হাঁপানি রোগীদের গিলয়ের শুকনো ডাঁটা ব্যবহার করা উচিত। গিলয়ের সাথে আমলকি মিশিয়ে ব্যবহার করলে ত্বকের রোগ দূর হয়। গিলয় পাচন তন্ত্রের জন্য খুবই উপকারি। আমলকির সাথে গিলয় খেলে হজম উন্নত হয়।

Check Also

যে লক্ষণগুলো থেকে জানতে পারবেন আপনার কিডনি ক্ষতিগ্রস্ত কি না!

কিডনির কোন সমস্যা হলে তা সচরাচর আগে থেকে বোঝা সম্ভব হয়না। এজন্য কিডনির সমস্যাকে ‘নীরব …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *