Home / Health / ভ্যাকসিন নিলে গর্ভস্থ শিশুর অটিজম হয়? টিকা নিয়ে প্রচলিত ৫ মিথ্যা দাবি সম্পর্কে সচেতন হন এখনই!

ভ্যাকসিন নিলে গর্ভস্থ শিশুর অটিজম হয়? টিকা নিয়ে প্রচলিত ৫ মিথ্যা দাবি সম্পর্কে সচেতন হন এখনই!

কোভিড ১৯ অতিমারী থেকে বাঁচতে ভ্যাকসিনের কোনও বিকল্প নেই। চিকিৎসক মহলের একাধিকবার প্রচার সত্ত্বেও এখনও মানুষের মধ্যে ভ্যাকসিন নিয়ে বিভিন্ন ভ্রান্ত ধারণা রয়েছে। করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউতে পৌঁছেও টিকা নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় দফায় দফায় ভ্রান্ত ধারণার প্রচার হচ্ছে। আসলে, কোভিড ১৯ ভ্যাকসিন নেওয়ার দ্বিধাগ্রস্ততা হল সাধারণ মানুষের মধ্যে সচেতনতার অভাবের ফলস্বরূপ। আসুন টিকাকরণ নিয়ে একের পর এক মিথগুলির অবসান ঘটাই।

ভ্যাকসিন মানুষকে অসুস্থ করে

ভ্যাকসিনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার আশঙ্কায় অনেকেই শট নেওয়া থেকে বিরত থাকেন। কিন্তু ভ্যাকসিন আপনাকে কোনও অসুস্থতা দেয় না, তবে কেউ কেউ হালকা থেকে মাঝারি জ্বর, মাথা ব্যথা বা ব্যথা অনুভব করতে পারেন যা প্রকৃতপক্ষে আপনার শরীর যে শটের মাধ্যমে সংক্রামিত অ-প্রাণঘাতী ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াই করছে এটি তারই লক্ষণ।

ভ্যাকসিন থেকে অটিসম হয়

ভ্যাকসিন অটিজমের কারণ হতে পারে এই আশঙ্কাটি প্রথমে ১৯৯৭ সালে মর্যাদাপূর্ণ মেডিকেল জার্নাল ল্যানসেটে প্রকাশিত একটি স্টাডি রিপোর্টের মাধ্যমে জনসমক্ষে এসেছিল। তবে ব্রিটিশ সার্জন অ্যান্ড্রু ওয়েকফিল্ডের (Andrew Wakefield) কাগজটি পরে গুরুতর পদ্ধতিগত ত্রুটি, স্বার্থের অঘোষিত আর্থিক সংঘাত এবং নৈতিক নীতি লঙ্ঘনের কারণে প্রত্যাহার করা হয়েছিল। সার্জনের মেডিকেল লাইসেন্সও বাতিল করা হয়েছিল। পরবর্তীকালে পরিচালিত বেশ কয়েকটি গবেষণায় ভ্যাকসিন এবং অটিজমের মধ্যে কোনও যোগসূত্র পাওয়া যায়নি।

শিশুদের জন্য ভ্যাকসিন

শিশুদের হেপাটাইটিসের বিরুদ্ধে শট নেওয়া অথবা পোলিও টিকা নেওয়ার চিত্রগুলি থেকে মানুষের মনে বিশ্বাস জন্মেছে যে ভ্যাকসিন সাধারণত শিশুদেরই দিতে হয়। এই ধারণা যে একেবারেই ঠিক নয় তা কোভিড ১৯ মহামারী প্রমাণ করেছে। জীবনের বিভিন্ন পর্যায়ে ভ্যাকসিনের প্রয়োজন রয়েছে এমনকি শিশুদেরও পরবর্তী পর্যায়ে বুস্টার শট নেওয়া দরকার কারণ ছোটবেলায় দেওয়া ডোজের সময়ের সঙ্গে সঙ্গে প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যেতে পারে। প্রসঙ্গত, টাইফয়েড, ইনফ্লুয়েঞ্জা এবং হেপাটাইটিস-এর মতো বেশ কয়েকটি প্রতিরোধযোগ্য রোগ রয়েছে যেগুলি টিকার মাধ্যমে নিরাময় করা যায়।

প্রাপ্তবয়স্কদের ভ্যাকসিনের প্রয়োজন নেই

যদিও কোভিড ১৯ মহামারীটি প্রাথমিক ভাবে প্রবীণদের উপর সব চেয়ে বেশি প্রভাব ফেলেছিল, কিন্তু দ্বিতীয় তরঙ্গ স্পষ্টতই তরুণ প্রাপ্তবয়স্কদের শরীরে মারাত্মক পরিণতি আনছে । বহু বছর ধরে টিকাদান জনস্বাস্থ্যের একটি গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ হয়ে উঠেছে। হেপাটাইটিস বি-এর বিরুদ্ধে ভ্যাকসিন স্বাস্থ্যসেবা সরবরাহকারী, কো-মরবিডিটিযুক্ত ব্যক্তি এবং অন্যদের মধ্যে গর্ভবতী মহিলাদের জন্য তাৎপর্যপূর্ণ হয়ে উঠেছে।

ভ্যাকসিন নিলে ফ্লু হবে

ভ্যাকসিন না নিয়ে ফ্লু-এর মধ্যে নিজেকে মেলে ধরার ধারণাটি অত্যন্ত বিপজ্জনক। সংক্রমণের পরে, ভাইরাসটি আপনার শরীরে গুরুতর প্রভাব ফেলতে পারে এবং কখনও কখনও মারাত্মক ক্ষতিরও সম্ভাবনা থাকে, যা কোমরবিডিটিযুক্ত ব্যক্তিদের জন্য আরও বিপজ্জনক। এক্ষেত্রে ভ্যাকসিন আপনার শরীরকে ফ্লুর বিরুদ্ধে প্রতিরোধ করতে সক্ষম করে তোলে।

Check Also

চোখকে সুস্থ রাখতে নিয়মিত করুন এই ৩টি ব্যায়াম

আমরা বাহু, পা, পেট এমনকি পিঠের ব্যায়াম করি। কিন্তু আমরা কি কখনো ভেবেছি চোখের ব্যায়ামের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *