Breaking News
Home / Uncategorized / যে লক্ষণগুলো থেকে জানতে পারবেন আপনার কিডনি ক্ষতিগ্রস্ত কি না!

যে লক্ষণগুলো থেকে জানতে পারবেন আপনার কিডনি ক্ষতিগ্রস্ত কি না!

কিডনির কোন সমস্যা হলে তা সচরাচর আগে থেকে বোঝা সম্ভব হয়না। এজন্য কিডনির সমস্যাকে ‘নীরব ঘাতক’ বলা হয়। গবেষণায় দেখা গেছে ক্যান্সার ও হার্ট অ্যাটাকের পর যে সমস্যাটি সবথেকে বেশি দেখা যাচ্ছে তা হল কিডনি ড্যামেজ হওয়ার সমস্যা। তবে এই সমস্যাটি সহজে বোঝা যায় না।

অনেক মানুষ হয়তো জানেনই না যে তারা কিডনির সমস্যায় ভুগছেন। ফলস্বরূপ এই সমস্যা ধীরে ধীরে প্রাণ কেড়ে নিতে সক্ষম হয়ে উঠছে। এ বিষয়ে চিকিৎসকবিদরা কিডনির সমস্যা বোঝার কয়েকটি লক্ষণ তুলে ধরেছেন, যে লক্ষণগুলো সচেতনভাবে খেয়াল করলেই আপনি বুঝতে পারবেন যে আপনার কিডনি ক্ষতিগ্রস্থ কি’না। জেনে নিন কি কি সেই লক্ষণ-

১: যদি কখনো দেখেন প্রস্রাবের সঙ্গে রক্তপাত হচ্ছে তবে সেক্ষেত্রে বুঝবেন আপনার কিডনি ক্ষতিগ্রস্ত। প্রস্রাব সাধারণত শরীরের বর্জ্য পদার্থ দূর করে দেয়। কিন্তু কিডনিতে যদি পাথর বা কোনরকম ইনফেকশন হয়ে থাকে তবে সে ক্ষেত্রে প্রস্রাবের সঙ্গে ব্লাড সেল বেরোতে শুরু করে। এছাড়া প্রস্রাবের যদি প্রচুর ফেনা দেখা দেয় তবে সে ক্ষেত্রে কিডনি সমস্যা হয়েছে বুঝে নিতে হবে।

২: হঠাৎ করে ফুলে যাওয়া কিডনির রোগের অন্যতম লক্ষণ। কিডনির কার্যক্ষমতা কমে গেলে গোড়ালি ও পায়ের পাতা ফুলতে শুরু করে।

৩: প্রস্রাবের সময় যদি দেখেন প্রস্রাব সাধারণের তুলনায় কম হচ্ছে বা ঘন ঘন প্রস্রাব আসছে তবে সে ক্ষেত্রে এটি কিডনির সমস্যা লক্ষণ প্রকাশ করে। সাধারণত কিডনির ফিল্টার নষ্ট হয়ে গেলে এই সমস্যা দেখা দেয়।

৪: প্রস্রাবের সময় যদি ব্যথার অনুভূতি হয় তবে সেটি কিডনির সমস্যার অন্য একটি লক্ষণ। এটি ইউরিনারি ট্র্যাক্ট ইনফেকশনের সমস্যা। এটি সাধারণত কিডনীতে ছড়িয়ে পড়ে ফলে জ্বর ও পিঠের পিছনেও ব্যথার অনুভূতি হয়।

৫: কিডনির কার্যক্ষমতা কমে গেলে এইসময় রক্তস্বল্পতা ও শরীর দুর্বল হওয়ার মতো লক্ষণ দেখা দেয়। কারণ এসময় রক্তে দূষিত ও বিষাক্ত পদার্থ উৎপন্ন হয়।

৬: কিডনি ক্ষতিগ্রস্ত হলে ফুসফুসে তরল পদার্থ জমা হয়, যার থেকে শ্বাস সংক্রান্ত সমস্যা দেখা দেয়।

৭: কিডনি ক্ষতিগ্রস্ত হলে এই সময় প্রস্রাবের সঙ্গে কিডনি থেকে প্রচুর প্রোটিন বের হয়ে যায় ফলে চোখের চারপাশ ফুলে যায়।

৮: কিডনিতে কোনরকম সমস্যা হলে খাবারে অরুচি আসে ও ঘন ঘন বমি পায়। এছাড়া শরীরের বিষাক্ত পদার্থ উৎপন্ন হওয়ার ফলে ত্বকে বিভিন্ন রকম সমস্যা দেখা দেয়। কিডনি সঠিকভাবে কাজ না করলে এইসময় শরীরে মিনারেল ও পুষ্টির ভারসাম্যহীনতা দেখা দেয়।

এই লক্ষণগুলো দেখা দিলে সঙ্গে সঙ্গে চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া উচিত। এটি কখনো অবহেলা করা উচিত নয়। কারণ এই লক্ষণগুলি অবহেলা করলে এটি আপনাকে মৃত্যু পর্যন্ত টেনে নিয়ে যেতে পারে।

Check Also

হঠাৎ নাক,কান বা গলায় কিছু ঢু’কে গেলে কী করবেন?

অনেকসময় খে’লতে গিয়ে বাচ্চারা না বুঝেই কিছু জিনিস নাকে কানে বা গলায় দিয়ে ফে’লে। ঠিক …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *